Search This Blog

Monday, February 20, 2017

প্রত্যয়

প্রত্যয়
মূলশব্দ বা মৌলিক শব্দের সঙ্গে যে অতিরিক্ত শব্দাংশ যুক্ত হয়ে নতুন নামপদ গঠন করে, তাকে প্রত্যয় বলে। [যা ক্রিয়ামূল ও শব্দমূলের সাথে যুক্ত হয়ে নূতন পদ সৃষ্টি করে বা বাক্যস্থ শব্দের ভিতরে সম্পর্ক সৃষ্টিতে সহায়তা করে, এমন ধ্বনি বা ধ্বনিগুচ্ছকে প্রত্যয় বলা হয়। ইংরেজি suffix, postfix। ] অর্থাৎ, প্রাতিপদিক ও ধাতুর সঙ্গে যেই শব্দাংশ যুক্ত হয়ে নতুন শব্দ গঠন করে, তাদেরকেই প্রত্যয় বলে। উপরের উদাহরণে, লাজুক শব্দের প্রকৃতি লাজ’-এর সঙ্গে প্রত্যয় উকযুক্ত হয়ে গঠিত হয়েছে লাজুকশব্দটি। এমনিভাবে-
প্রকৃতি + প্রত্যয় = প্রত্যয়সাধিত শব্দ
  • বড়  + আই   = বড়াই
  • ঘর  + আমি   = ঘরামি
  • পড়  + উয়া   = পড়ুয়া
  • নাচ  + উনে   = নাচুনে
  • জিত  +    = জিতা
  • চল্ (গমন করা) +ই =চলি
  • অৎ (গমন করা) +ই =অতি (অধিক)

বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত প্রত্যয়গুলোকে ভাষাগত প্রকৃতি অনুসারে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়। এই ভাগগুলো হলো
১. সংস্কৃত প্রত্যয় :
এই প্রত্যয়কে মোট পাঁচটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে। এ গুলি হলো
  • কৃৎপ্রত্যয় (Primary suffix)
  • তদ্ধিত প্রত্যয় (Secondary suffix)
  • স্ত্রী-প্রত্যয় (faminine suffix)
  • ধাত্ববয়ব (Parts of roots)
  • বিভক্তি (Inflection)
২. বাংলা প্রত্যয় :
দেশী প্রত্যয়কেই বলা হয়, বাংলা প্রত্যয়।
৩. বিদেশী প্রত্যয় :
সংস্কৃত ও বাংলা ব্যতীত অন্যান্য প্রত্যয়গুলো বিদেশী প্রত্যয় বলা হয়।

উচ্চারণবিধি

উপসর্গ

তৎসম বা সংস্কৃত উপসর্গ

বাংলা উপসর্গ

বিদেশি উপসর্গ

কারকের প্রকারভেদ

কাল

কাল

অতীত কাল

বর্তমালকাল

ভবিষ্যত কাল

বাংলাছন্দ

ণত্ব বিধান ও ষত্ব বিধান

ধাতু

ধ্বনি 

ধ্বনি পরিবর্তন

পদ পরিচয়

বিশেষ্য পদ

বিশেষণ পদ

সর্বনাম পদ

ক্রিয়াপদ

অব্যয় পদ

পুরুষ [PERSON]

প্রকৃতি

প্রত্যয়

সংস্কৃত প্রত্যয়

কৃৎপ্রত্যয়

শব্দের অর্থমূলকশ্রেণীবিভাগ

দ্বিরুক্ত শব্দ 

সংস্কৃত তথা তৎসম শব্দের সন্ধি

সমাস অনুশীলন




No comments:

Post a Comment