Search This Blog

Tuesday, February 21, 2017

কারক বিভক্তি

কারক বিভক্তি :
ক্রিয়া পদের সাথে অন্যান্য পদের সম্পর্ককে কারক বলা হয়। এক্ষেত্রে যে সকল বিভক্তি ক্রিয়াপদের সাথে অন্যান্য পদের সম্পর্ক স্থাপন করে তাদেরকে কারক বিভক্তি বলা হয়। যেমন-
ভিক্ষুককে টাকা দাও। এখানে কেকারক বিভক্তি
বাক্যের একটি শব্দের সঙ্গে আরেকটি শব্দের সম্পর্ক স্থাপনের জন্য শব্দগুলোর সঙ্গে কিছু শব্দাংশ যুক্ত করতে হয়। এই শব্দাংশগুলোকে বলা হয় বিভক্তি।

মা শিশু চাঁদ দেখা।
উপরের বাক্যটিতে কোন শব্দের সঙ্গে বিভক্তি যুক্ত করা হয়নি। ফলে বাক্যের শব্দগুলোর মধ্যে কোন সম্পর্ক সৃষ্টি হয়নি, এবং এগুলো বাক্যও হয়ে উঠতে পারেনি। এখন শিশুর সঙ্গে কে বিভক্তি আর দেখার সঙ্গে চ্ছেনবিভক্তি যোগ করলে বাক্যটি হবে-
মা শিশুকে চাঁদ দেখাচ্ছেন।
অর্থাৎ, শব্দগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক সৃষ্টির মাধ্যমে একটি বাক্য সম্পূর্ণ হলো এবং এখন আর এগুলো শব্দ নয়, এগুলো প্রত্যেকটি একেকটি পদ।
শব্দের সঙ্গে বিভক্তি যুক্ত হলে তখন সেগুলোকে বলা হয় পদ। বাক্যে বিভক্তি ছাড়া কোন পদ থাকে না বলে ধরা হয়। তাই কোন শব্দে কোন বিভক্তি যোগ করার প্রয়োজন না হলেও ধরে নেয়া হয় তার সঙ্গে একটি বিভক্তি যুক্ত হয়েছে। এবং এই বিভক্তিটিকে বলা হয় শূণ্য বিভক্তি। উপরের বাক্যটিতে মাচাঁদশব্দদুটির সঙ্গে কোন বিভক্তি যোগ করার প্রয়োজন হয়নি। তাই ধরে নিতে হবে এই শব্দদুটির সঙ্গে শূণ্য বিভক্তি যোগ হয়ে এগুলো বাক্যে ব্যবহৃত হয়েছে, এবং এই দুটিও এখন পদ।
মৌলিক বাংলা শব্দ বিভক্তিগুলো হলো- শূণ্য বিভক্তি (০), , , তে, কে, রে, র(এর)। তবে এছাড়াও কিছু কিছু অব্যয় শব্দ কারক সম্বন্ধ নির্ণয়ের জন্য ব্যবহৃত হয়। এগুলো হলো- দ্বারা, দিয়া, কর্তৃক, হতে, থেকে, চেয়ে, ইত্যাদি।
কারকে সাত প্রকার বিভক্তিকে স্বীকার করা হয়। প্রতিটি বিভাগ একবচন ও বহুবচনে বিভক্ত এবং প্রতিটি ভাগে রয়েছে একাধিক বিভক্তি। নিচে এই বিভক্তি গুলির তালিকা তুলে ধরা হলো-
বিভক্তি
একবচন
বহুবচন
প্রথমা
, , অ (য়), তে, এতে
রা, এরা, গুলি, গুলো, গণ, বৃন্দ
দ্বিতীয়া
, কে, রে, এরে, এ য়, তে
দিগকে, দেরকে, গুলিকে, গুলাকে, বৃন্দকে
তৃতীয়া
, , , য়ে, তে, দ্বারা, দিয়া, দিয়ে, কর্তৃক
দিগের দিয়া, দের দিয়া, দিগকে দ্বারা, দিগ কর্তৃক, গুলির দ্বারা, গুলিকে দিয়া, গুলো দিয়ে, গুলি কর্তৃক, দের দিয়ে
চতুর্থী
, কে, রে, এরে, এ য়, জন্যে, তরে, তে,
দের তরে দের জন্যে, দিগে, দিগকে, দিগেরে, দের, গুলিকে, গুলাকে, বৃন্দকে
পঞ্চমী
, , য়ে, , হইতে, থেকে, চেয়ে, হতে
দিগ হইতে, দের হইতে, দিগের চেয়ে, গুলি হইতে, গুলির চেয়ে, দের হতে, দের থেকে, দের চেয়ে, গণ হইতে, বৃন্দ হইতে।
ষষ্ঠী
, এর, কার, কের
দিগের, দের, গুলির, গণের, গুলোর, গণের, বৃন্দের
সপ্তমী
, , , য়ে, তে, এতে, কাছে. মধ্যে
দিগেতে, গুলিতে, গণে, গুলির মধ্যে, গুলোতে, গুলোর মধ্যে, গণের মধ্যে, দিগের মধ্যে।
উপরের তালিকার ভিতরে কিছু কিছু বিভক্তি শব্দের সাথে যুক্ত না হয়ে পৃথকভাব বসে। যেমন- তাকে দিয়ে এ কাজ হবে না। এখানে দিয়েকারকে বিভক্তি হিসাবে বিবেচিত হলেও- বিযুক্ত থাকার কারণে এই জাতীয় বিভক্তিকে অনুসর্গ হিসাবে বিবেচনা করা হবে। এই জাতীয় অনুসর্গবাচক বিভক্তি গুলি হলো-
তৃতীয়া বিভক্তি : দ্বারা, দিয়া, দিয়ে, কর্তৃক, দিগের দিয়া, দের দিয়া, দিগকে দ্বারা, দিগ কর্তৃক, গুলির দ্বারা, গুলিকে দিয়া, গুলো দিয়ে, গুলি কর্তৃক, দের দিয়ে।
চতুর্থী বিভক্তি : দের তরে দের জন্যে
পঞ্চমী বিভক্তি : হইতে, থেকে, চেয়ে, হতে, দিগ হইতে, দের হইতে, দিগের চেয়ে, গুলি হইতে, গুলির চেয়ে, দের হতে, দের থেকে, দের চেয়ে, গণ হইতে, বৃন্দ হইতে।
সপ্তমী বিভক্তি : গণের মধ্যে, দিগের মধ্যে
এই সকল অনুসর্গবাচক বিভক্তিকে বাদ দিলে অন্যান্য যে বিভক্তি পাওয়া যায়, তার তালিকা নিচে তুলে ধরা হলো।
বিভক্তি নাম
ব্যবহারিক নমুনা
শূন্য (প্রথমা)
বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর
প্রথম (একবচন)
পাগলে কিনা বলে
সপ্তমী (একবচন)
বিপদে মোরে রক্ষা কর
এর
ষষ্ঠী (একবচন)
নিজের চেষ্টাঅপরের টাকা (সম্বন্ধবাচক)
এরা
প্রথমা (বহুবচন)
ছেলেরা খেলা করছে
কে
দ্বিতীয় (একবচন)
আমাকে যেতে হবে
কে
চতুর্থী (একবচন)
ভিক্ষুককে যেতে হবে
গণ
প্রথমা (বহুবচন)
শিক্ষকগণ সেখানে উপস্থিত ছিলেন
গণে
সপ্তমী (বহুবচন)
শিক্ষকগণে বনিবনা হইল না
গণের
ষষ্ঠী (বহুবচন)
শিক্ষকগণের সিদ্ধান্তই বহাল রহিল
গুলো/গুলি/গুলা
প্রথমা (বহুবচন)
পাখিগুলি আকাশে উড়ছিল
গুলোকে/গুলাকে/গুলিকে
দ্বিতীয়া (বহুবচন)
পাখিগুলিকে খাবার দাও
গুলোতে/গুলাতে/গুলিতে
সপ্তমী (বহুবচন)
আমগুলিতে পোকা ছিল
গুলোর/গুলার/গুলির
ষষ্ঠী (বহুবচন)
পাখিগুলির দানাপানি দেওয়া হয় না
দিগকে
দ্বিতীয়া (বহুবচন)
আমাদিগকে তিনি প্রত্যখ্যান করিলেন
দিগেতে
সপ্তমী (বহুবচন)
আমাদিগেতে তোমাদিগেতে কোনো প্রভেদ রহিল না
দিগের
ষষ্ঠী (বহুবচন)
তাহাদিগের কথা আমাকে বলিও না
দের
ষষ্ঠী (বহুবচন)
তাহাদের কথা আমাকে বলিও না
দেরকে
দ্বিতীয়া (বহুবচন)
আমদেরকে তিনি আপ্যায়ন করলেন
তে
প্রথমা (একবচন)
গরুতে গাড়ি টানে
বৃন্দ
প্রথমা (বহুবচন)
ছাত্রবৃন্দ কোলাহল করিতেছিল
বৃন্দকে
দ্বিতীয়া (বহুবচন)
ছাত্রবৃন্দকে তিনি পরামর্শ দিলেন
বৃন্দের
ষষ্ঠী (বহুবচন)
ছাত্রবৃন্দের আবেদন বাতিল হইয়া গেল
প্রথমা (একবচন)
ঘোড়ায় গাড়ি টানে
সপ্তমী (একবচন)
টাকায় কি না হয়।
ষষ্ঠী (একবচন)
রাজার ছেলেবাঙালির মেয়ে (সম্বন্ধবাচক)
ষষ্ঠী (একবচন)
আমার খাওয়া হলো না (কারক)
রা
প্রথমা (বহুবচন)
আমরা সেখানে যাব না
রে
দ্বিতীয় (একবচন)
আমারে তুমি অশেষ করেছে
  • চতুর্থী বিভক্তি শুধুমাত্র সম্প্রদান কারকে যুক্ত হয়।
  • বচনভেদে বিভক্তির আকৃতি পরিবর্তিত হয়। তবে কোন বিভক্তি চিহ্নিত করার জন্য উপরের বিভক্তির তালিকাটি মনে রাখলেই চলবে।
  • বিভক্তির নাম লেখার সময় কখনো সংক্ষিপ্ত আকারে লেখা যাবে না। অর্থাৎ দ্বিতীয়া বিভক্তিকে কখনোই ২য়া বিভক্তি লেখা যাবে না।
  • বিভক্তির তালিকাটি ভালোভাবে আত্মস্থ করতে হবে, প্রয়োজন হলে মুখস্থ করতে হবে।

উচ্চারণবিধি

উপসর্গ

তৎসম বা সংস্কৃত উপসর্গ

বাংলা উপসর্গ

বিদেশি উপসর্গ

কারকের প্রকারভেদ

কাল

কাল

অতীত কাল

বর্তমালকাল

ভবিষ্যত কাল

বাংলাছন্দ

ণত্ব বিধান ও ষত্ব বিধান

ধাতু

ধ্বনি 

ধ্বনি পরিবর্তন

পদ পরিচয়

বিশেষ্য পদ

বিশেষণ পদ

সর্বনাম পদ

ক্রিয়াপদ

অব্যয় পদ

পুরুষ [PERSON]

প্রকৃতি

প্রত্যয়

সংস্কৃত প্রত্যয়

কৃৎপ্রত্যয়

শব্দের অর্থমূলকশ্রেণীবিভাগ

দ্বিরুক্ত শব্দ 

সংস্কৃত তথা তৎসম শব্দের সন্ধি

সমাস অনুশীলন





No comments:

Post a Comment