Search This Blog

Monday, March 6, 2017

SSC Model Test Bangla 1st Paper 02

এসএসসি মডেল টেস্ট - 
বাংলা প্রথম পত্র
সৃজনশীল প্রশ্ন
গদ্য পদ্য অংশের প্রতিটি থেকে অন্তত ২টি এবং উপন্যাস নাটক  অংশের প্রতিটি থেকে অন্তত ১টিসহ মোট ৭টি প্রশ্নের উত্তর দাও প্রতিটি প্রশ্নের মান ১০
অংশগদ্য

        আকলিমার স্বামী কোনো কাজ করে না, তাই তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করেন। স্বল্প আয়ে সংসার চলে না বলে বিভিন্ন বাড়ি থেকে তেল, মসলা, পেঁয়াজ, রসুন এনে রান্নার কাজে ব্যবহার করেন। অন্যের বাড়িতে তাঁর কাজ করতে ইচ্ছে করে না, তবুও বাধ্য হয়ে করতে হয়
            () মমতাদির স্বামীর চাকরি কবে হয়েছে বলে সে লেখকের মাকে জানায়?         
            () মমতাদিকে কেউ মেরেছে বলে লেখকের সন্দেহ হলো কেন? ব্যাখ্যা করো।                                        
            () আকলিমার সঙ্গেমমতাদিগল্পের মমতাদির কোন দিকটির বৈসাদৃশ্য আছে? ব্যাখ্যা করো।                   
            () ‘মমতাদিগল্পের মূল ভাব প্রতিফলিত হয়েছে কি? বিশ্লেষণ করো।    
            
        মা মরা মেয়ে লতিফা আজ শ্বশুরবাড়ি যাবে। সুখে থাকবে এই আশায় দরিদ্র কৃষক লতিফ মিয়া আবাদের সামান্য জমিটুকু বন্ধক রেখে বিয়ের যাবতীয় খরচ জোগাড় করলেন। কিন্তু পণের টাকা জোগাড় করতে পারেননিএই কথা জানালে বর হালিমের বাবা হাশেম মিয়া ছেলেকে বিয়ের আসর থেকে উঠিয়ে নিয়ে গেলেন। ছেলেও বাবার কথায় কোনো প্রতিবাদ না করে তাকে অনুসরণ করল
            () নিরুপমার স্বামী কী কাজ করতেন?            
            () ‘অবস্থা এমন হইল যে, সংসারের খরচ আর চলে না’— কেন?          
            () উদ্দীপকের হালিমের সঙ্গে নিরুপমার বরের বৈসাদৃশ্য ব্যাখ্যা করো।   
            () ‘যৌতুক প্রথার ভয়াবহ পরিণতি নিরুপমার মতো লতিফার জীবনে নেমে আসতে পারেনি’—কথাটির সত্যতা যাচাই করো।            
       জাতের নামে বজ্জাতি সব জাত জালিয়াত খেলছ জুয়া
            ছুঁলেই তোর জাত যাবে? জাত ছেলের হাতের নয় তো মোয়া
            হুঁকোর জল আর ভাতের হাঁড়িভাবলি এতেই জাতির জান,
            তাই তো বেকুব, করলি তোরা এক জাতিরে একশখান
            এখন দেখিস ভারতজোড়া পচে আছিস বাসি মড়া,
            মানুষ নাই আজ, আছে শুধু জাত শেয়ালের হুক্কা হুয়া
            () ‘সন্ধ্যাহ্নিককী?     
            () ‘কিন্তু সেই ছোট্ট কাঙাল জীবনটুকু বিধাতার এই পরিহাসের দায় থেকে অব্যাহতি লাভ করিয়াছিল’—ব্যাখ্যা করো।   
            () উদ্দীপকেঅভাগীর স্বর্গগল্পের যে সমাজচিত্রের ইঙ্গিত রয়েছে, তা ব্যাখ্যা করো।        
            () “উদ্দীপকের কবির ইচ্ছা যদিঅভাগীর স্বর্গগল্পে প্রতিফলিত হতো, তবে অভাগীর পরিণতি হয়তো ভিন্নতর হতো”—মন্তব্যটির যথার্থতা যাচাই করো
        হরিনামপুরের চেয়ারম্যান সাহেবের মেয়ের বিয়ে উপলক্ষে বিরাট আয়োজন। এলাকার ধনী-গরিব সবাই এসেছেন দাওয়াত খেতে। দরিদ্র কৃষক গণি মিয়াও তাঁর ছেলে গিয়াসকে নিয়ে দাওয়াত খেতে এসেছেন। কিন্তু বিপত্তি ঘটল গিয়াসের হাত থেকে পড়ে একটি গ্লাস ভেঙে যাওয়ায়। চেয়ারম্যান সাহেবের স্ত্রী স্বামীর ওপর রাগ করে বললেন—‘এসব ছোটলোকদের দাওয়াত দিয়ে ভুল করেছ। ওরা কি এক সারিতে বসে খাওয়ার যোগ্য?’ চেয়ারম্যান তাকে থামানোর চেষ্টা করে বলেছেন, ‘এদের কারণেই আমি আজ হরিনামপুরের চেয়ারম্যান।
            () ‘বোধন বাঁশিকী?
            () আমাদের দেশে জনশক্তি গঠন হতে পারছে না কেন?                        
            () উদ্দীপকের চেয়ারম্যানের স্ত্রীর সঙ্গেউপেক্ষিত শক্তির উদ্বোধনপ্রবন্ধে বর্ণিত কাদের সাদৃশ্য রয়েছে? ব্যাখ্যা করো
            () ‘এরাই তো আমাদের ভাগ্য নিয়ন্তা’—উদ্দীপকের চেয়ারম্যানের এই বক্তব্যে যে মানসিকতার পরিচয় মেলে, তাউপেক্ষিত শক্তির উদ্বোধনপ্রবন্ধের আলোকে বিশ্লেষণ করো

            অংশপদ্য
        মাদার তেরেসা অকৃত্রিম মাতৃস্নেহের আধার ছিলেন। আলবেনিয়ান বংশোদ্ভূত হয়েও তিনি তাঁর কাজের জন্য সারা পৃথিবীতে স্মরণীয় হয়ে আছেন। ১৯৫০ সালে তিনি কলকাতায়মিশনারিজ অব চ্যারিটিনামে একটি সেবা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তী সময় এই চ্যারিটি হোম সমগ্র পৃথিবীর দরিদ্র, অসুস্থ, অনাথ মৃত্যুপথযাত্রী মানুষের জন্য কাজ করে। এই কাজের জন্য ১৯৭৯ সালে তাঁকে নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রদান করা হয়। সেই পুরস্কারের অর্থ তিনি সেবার কাজে ব্যয় করেন। ১৯৯৭ সালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। কিন্তু পৃথিবীর মানুষ তাঁর নাম শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে
            () বাংলা কত তারিখে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জন্মগ্রহণ করেন।  
            () পৃথিবীতে কবি অমরালয় রচনা করতে চান কেন?           
            () ‘প্রাণকবিতার কোন বিষয়টি মাদার তেরেসার জীবনের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ? ব্যাখ্যা করো।       
            () “মাদার তেরেসার জীবন পরিণতিইপ্রাণকবিতার মূল উপজীব্যমন্তব্যটি বিশ্লেষণ করো
       এইচএসসি পাসের পর পড়াশোনার জন্য আমেরিকায় পাড়ি জমায় রাশেদ। কিন্তু তার মন সারাক্ষণ আচ্ছন্ন করে রাখে স্বদেশে রেখে যাওয়া ছোট গ্রাম, সেখানকার আম্রকানন, বিস্তৃত ধানক্ষেত। তার ভাষায়, স্বর্গের চেয়েও শ্রেষ্ঠ তার প্রিয় স্বদেশ
            () ‘কপোতাক্ষ নদকবিতার অষ্টকের মিলবিন্যাস কী?
            () ‘স্নেহের তৃষ্ণাবলতে কী বোঝানো হয়েছে?  
            () উদ্দীপকের রাশেদের অনুভূতিকপোতাক্ষ নদকবিতার সঙ্গে কতটা সাদৃশ্যপূর্ণ তা ব্যাখ্যা করো
            () ‘উদ্দীপকে প্রতিফলিত অনুভূতির অন্তরালে যে ভাবটি প্রকাশ পেয়েছে, তা-কপোতাক্ষ নদকবিতার মূল ভাব’—কথাটির সত্যতা বিচার করো
        ‘শিল্পী, কবি, দেশি কি বিদেশি সাংবাদিক
            খদ্দের শ্রমিক, ছাত্র, বুদ্ধিজীবী, সমাজ সেবিকা
            সবাই এলেন ছুটে, পল্টনের মাঠ শুনবেন
            দুর্গত এলাকা প্রত্যাগত বৃদ্ধ মৌলানা ভাসানী
            কী বলেন। রৌদ্রালোকে দাঁড়ালেন তিনি দৃঢ়, ঋজু,
            শোনালেন কিছু কথা, যেন নেতা নন,
            অলৌকিক স্টাফ রিপোর্টার।
            () ‘স্বাধীনতা, এই শব্দটি কিভাবে আমাদের হলোকবিতাটি কোথা থেকে সংকলিত?                             
            () ‘মার্চের বিরুদ্ধে মার্চবলতে কী বোঝানো হয়েছে?               
            () উদ্ধৃত কবিতাংশেস্বাধীনতা, এই শব্দটি কিভাবে আমাদের হলো’— কবিতার যে দিকটি প্রতিফলিত হয়েছে তার বর্ণনা দাও।                            
            () উদ্দীপকের মৌলানা ভাসানী এবং নির্মলেন্দু গুণেরকবিএক সূত্রে গাঁথাবিশ্লেষণ করো।      

অংশউপন্যাস
       গ্রামের পর গ্রাম কাল-কলেরায় উজাড়। নিরীহ তালেব মাস্টারের বুকেও বজ্র পড়ল! কলেরায়
            ছেলেটি মারা গেল বিনা পথ্যে, বিনা শুশ্রূষায়। কাফনের কাপড় জোটেনি, তাই বিনা কাফনে বাইশ বছরের বুকের মানিককে কবরে শুইয়ে দিয়েছি এখানে!
            () আহাদ মুন্সীর সঙ্গে কয়জন রাজাকার ছিল?  
            () ‘বানরের আবার চাঁদে যাওয়ার সাধ’—মধুরে কথা বলার কারণ কী?
            () উদ্দীপকের ঘটনাটিকাকতাড়ুয়াউপন্যাসের সঙ্গে কিভাবে সাদৃশ্যপূর্ণ তা ব্যাখ্যা করো
            () “উদ্দীপকেকাকতাড়ুয়াউপন্যাসের মূলভাব উপস্থাপিত হয়নি”—মন্তব্যটির যথার্থতা যাচাই করো।        
        তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা,
            সাকিনা বিবির কপাল ভাঙল
            সিঁথির সিঁদুর মুছে গেল হরিদাসীর
            তুমি আসবে বলে শহরের বুকে
            জলপাই রঙের ট্যাঙ্ক এলো
            দানবের মতো চিকার করতে করতে
            ছাত্রাবাস, বস্তি উজাড় হলো
            ছাই হলো গ্রামের পর গ্রাম
            () বুধার মা-বাবার কবর কে পরিষ্কার করে?   
            () ‘আল্লাহ মাফ করুক। এখানে থাকার ভাগ্য যেন আমাদের না হয়।কথাটি ফজু মিয়া কেন বলেছিল।           
            () উদ্দীপকেকাকতাড়ুয়াউপন্যাসের যে বিশেষ দিকের ইঙ্গিত রয়েছে, তা ব্যাখ্যা করো।                      
            () সাকিনা, হরিদাসী আর বুধার জন্যই আজকের স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশমন্তব্যটি বিশ্লেষণ করো

অংশনাটক
১০       ছেলেবেলায় বাপ-মা হরিয়ে মামার বাড়িতে মানুষ হয় সুমি। টাকার লোভে তার মামা শরিফ মিয়া সুমিকে সতিনের ঘরে বিত্তবান হারুণের সঙ্গে বিয়ে ঠিক করে। এর প্রতিবাদ করে স্ত্রী খালেদা বলে, ‘সুমিকে আমাদের ছেলে মাসুমের বউ কইরা নিমু, তবু সতিনের ঘরে বিয়া দিমু না।কিন্তু শরিফ মিয়া বলে, ‘মাসুমকে অন্য জায়গায় বিয়া করাইলে বহুত টাকা পাওয়া যাইত, সেই বুদ্ধিটাও নাই তোমার। ’ ‘হইছে, হইছে, আমার অত বুদ্ধিরও দরকার নাই, টাকারও দরকার নাই, কয়দিনের জীবন মানুষের, অ্যাঁ?’
            () কত বছর যাবত্ হকিকুল্লাহ বহিপীরের খেদমত করছে?
            () জমিদার হাতেম আলীর মনে শান্তি নেই কেন?          
            () ‘বহিপীরনাটকের হাতেম আলীর চরিত্রের সঙ্গে উদ্দীপকের শরিফ মিয়ার চরিত্রের পার্থক্য নিরূপণ করো।                    
            () “উদ্দীপকের খালেদা চরিত্রটিবহিপীরনাটকেরখেদেজা চরিত্রকে ছাড়িয়ে গেছে”—মন্তব্যটির যথার্থতা নিরূপণ করো
১১       সাবিকুন নাহার পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে পড়াশোনায় বরাবরই ভালো ছিল। ওর ইচ্ছা অনেক দূর পর্যন্ত পড়ালেখা করবে। কিন্তু সাবিকুনের বাবা মেয়ের পেছনে টাকা খরচ করতে রাজি নন। তাই মেয়েকে এক ধনী বুড়োর সঙ্গে জোর করে বিয়ে দিয়ে দেন। জীবনপিপাসু সাবিকুন বিয়ে মেনে নিতে পারেনি বলে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়
            () ‘বহিপীরনাটকটি কত সালে প্রকাশিত হয়?
            () ‘হয় এটি ধ্বংস, না হয় ওটি ধ্বংস হবে’—উক্তিটির মাধ্যমে লেখক কী বুঝিয়েছেন?                         
            () ‘বহিপীরনাটকের যে চরিত্রের সঙ্গে সাবিকুন নাহারের মিল খুঁজে পাওয়া যায়, তা ব্যাখ্যা করো।        
            () ‘সাবিকুন নাহার জীবনপিপাসু এক প্রতিবাদী নারী’—বহিপীর নাটকের আলোকে উক্তিটির যথার্থতা বিশ্লেষণ করো                        


No comments:

Post a Comment